৭৫তম জন্মদিনে প্রধানমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানাতে ছাতকে জনসমুদ্র!

প্রকাশিত: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:২৪ অপরাহ্ণ

 ছাতক প্রতিনিধি:: উৎসাহ, উদ্দীপনা ও ব্যাপক আয়োজনে আওয়ামীলীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫ তম জন্মোৎসব পালন করেছে ছাতক-দোয়ারা উপজেলা ও ছাতক পৌর আওয়ামী লীগ। প্রধানমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানাতে এমপি মানিকের নেতৃত্বে জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে ছাতকের শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে (মন্টু বাবুর মাঠ)।

এ উপলক্ষে মঙ্গলবার বিকেলে দলের নেতাকর্মী নিয়ে অনুষ্ঠানস্থলে ৭৫ কেজি ওজনের কেক কাটেন মুহিবুর রহমান মানিক এমপি। কেক কাটার পর জন্মবার্ষিকীর মূল অনুষ্ঠান শুরু হয় বিকেল ২টায়। এর আগেই লোকে লোকারণ্য হয়ে পড়ে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম। ছাতক পৌরসভাসহ ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলার সবগুলো ইউনিয়ন থেকেই ব্যানার, ফেস্টুন, স্লোগান ও বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে মিছিল করে লোকজন জড়ো হন সভাস্থলে। দিনভর ছাতক শহর যেন এক উৎসবমুখর পরিবেশে বিরাজ করছিলো। সুসজ্জিত করা শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম ও এর আশ-পাশ এলাকায় শুধু উৎসবের আমেজ। সার্বিক প্রস্তুতি দেখতে সোমবার রাতে সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিকসহ আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ মাঠ ও মঞ্চ পরিদর্শন করেন।

অনুষ্ঠান সফলের লক্ষ্যে সোমবার সন্ধ্যায় শহরে মোটর সাইকেল শো-ডাউন করেছে যুবলীগ ও ছাত্রলীগ। প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে মঙ্গলবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আঙিনায় বিভিন্ন প্রজাতির ৭৫টি বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন মুহিবুর রহমান মানিক এমপি। পরে শহরের লাল মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে অংশ নেন তিনি।

বিকেলে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে ছাতক পৌরসভার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও পৌর আওয়ামীলীগের সন্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক আলহাজ্ব আব্দুল ওয়াহিদ মজনুর সভাপতিত্বে উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, ছাতক-দোয়ারা নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য ও সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি মুহিবুর রহমান মানিক। প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুহিবুর রহমান মানিক এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধু হলেন বাংলাদেশের স্বাধীনতার রুপকার এবং উন্নত বাংলাদেশের রূপকার হলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। ইতিহাসের স্বরূপ অনুসন্ধান করলে পাওয়া যাবে বঙ্গবন্ধু দেশের স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন, আর তা রক্ষার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন তাঁর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা। তাঁর বাংলাদেশ আজ উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রার মিছিলে এগিয়ে চলেছে অদম্য গতিতে। এখন বাংলাদেশের উন্নয়ন ও শেখ হাসিনা একবিন্দুতে মিলিত হয়েছেন। শেখ হাসিনা মানেই স্বপ্ন, শেখ হাসিনা মানেই এগিয়ে যাওয়া। ইতিমধ্যে শেখ হাসিনা নিজের বিচক্ষণতা আর দূরদর্শিতা দিয়ে নিজেকে শুধু দক্ষিণ এশিয়ারই নয় বিশ্বের অন্যতম শক্তিধর ও জনপ্রিয় নেত্রী এবং রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছেন। এমপি মানিক আরো বলেন, রাজনৈতিক প্রজ্ঞা দিয়েই তিনি ছাতক-দোয়ারাবাসীর স্বপ্ন পূরণে এই আসনে তাকে ৭ বার নৌকা প্রতীক দিয়ে নির্বাচন করতে মনোনীত করেছেন শেখ হাসিনা। ছাতক-দোয়ারার যত উন্নয়ন সবই আওয়ামী লীগের হাত ধরেই হয়েছে। তাই শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে ছাতকে আজ এই জনসমুদ্র। এই এলাকার সুনাম-সমৃদ্ধি ও উন্নয়ন যাদের সহ্য হয়না ইতিহাস তাদের কখনো ক্ষমা করবেনা। ছাতক সুনামগঞ্জ রেলপথ নিয়ে যারা ষড়যন্ত্র করছে তারা সফল হবেনা। ছাতক-দোয়ারাবাসী এসব টালবাহানা মেনে নিবে না। সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা নিজেই একজন রত্ন। তাই তিনি রত্ন চিনতে ভুল করেননা। ছাতক-দোয়ারার মানুষ তথা সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের জন্য মুহিবুর রহমান মানিক শেখ হাসিনার এক উপহার। ছাতক উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির যুগ্ম আহবায়ক সৈয়দ আহমদ, সদস্য আফজাল হোসেন, পৌর আওয়ামীলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির যুগ্ম আহবায়ক ও পৌরসভার প্যানেল মেয়র তাপস চৌধুরী ও সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি এম রশিদ আহমদের যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠিত প্রধানমন্ত্রীর জন্মোৎসবে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ছাতক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের সন্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক ফজলুর রহমান, দোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ ইদ্রিস আলী বীর প্রতিক, জগন্নাথপুর পৌর সভার সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান, সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সুজাত আলী রফিক, ছাতক ডিগ্রী কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ মঈন উদ্দিন আহমদ, সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আখতারুজ্জামান সেলিম, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি, প্রবীণ সাংবাদিক তাপস দাস পুরকায়স্থ, জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মুক্তাদির আহমদ মুক্তা, ছাতক উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবু সাদাত লাহিন, দোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল খালিক, ইউপি চেয়ারম্যান গয়াছ আহমদ, দেওয়ান তানভীর আশরাফি চৌধুরী বাবু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সালেহা বেগম, লিপি বেগম, ছাতক উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক, ইউপি চেয়ারম্যান বিল্লাল আহমদ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি উবায়দুল রউফ বাবলু, দোয়ারা উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক জসিম উদ্দিন রানা, ছাতক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আনোয়ার রহমান তোতা মিয়া, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর আফতাব হোসেন খান, ছাতক উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক তাজাম্মুল হক রিপন প্রমুখ। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, জেলা যুবলীগ নেতা সাদমান মাহমুদ সানি। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা নিজাম উদ্দিন বুলি। সভায় ইউপি চেয়ারম্যান আওলাদ হোসেন, গয়াস আহমদ, শায়েস্তা মিয়া, বিল্লাল আহমদ, মোরাদ হোসেন, আমিরুল হক, কাজী আনোয়ার মিয়া আনু, আখলাকুর রহমান, আব্দুল হেকিম, সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নিজাম উদ্দিন, আলহাজ্ব নূরুল ইসলাম, আখলুছ মিয়া, আফজাল আবেদীন আবুল, বীর মুক্তিযোদ্ধা কদর মিয়া, ফজর উদ্দিন, মোজাহিদ আলী, আওয়ামীলীগ নেতা আজমান আলী, চান মিয়া চৌধুরী, জিতু মিয়া,

মোশাহিদ আলী, আফতাব উদ্দিন, সাব্বির আহমদ, গিয়াস উদ্দিন, এড. শামছুর রহমান, এড. মনির উদ্দিন, এড. জমির উদ্দিন, আলা উদ্দিন, নিতাই রায়, কালিদাস পোদ্দার, মিজানুর রহমান জাবেদ, পীযুষ দাস, সিরাজুল ইসলাম, জোয়াদ আলী, সিলেট সিটি কাউন্সিলর বিক্রমকর সম্রাট, সাবেক কাউন্সিলর আছাব মিয়া, আব্দুল আউয়াল, মাফিজ আলী, নজমুল হোসেন, হাফিজ আব্দুল্লাহ, মঞ্জু মিয়া, কুতুব উদ্দিন, হাজী বুলবুল, আনিছুর রহমান চৌধুরী সুমন, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা পীযুষ কান্তি দে, মুজিব মালদার, বাবুল রায়, আবু শামা রাসেল, মুহিবুর রহমান তালুকদার টুনু, রঞ্জন কুমার দাস, এনামুল হক, সাকের রহমান, মঞ্জুর আলম, কৃপেশ চন্দ, যুবলীগ নেতা হাজী জয়নাল আবেদীন, বিমান ঘোষ, কুহিন চৌধুরী, সুহেল মাহমুদ, ইশতিয়াক রহমান তানভীর,, ফজলু মিয়া মেম্বার, আব্দুল মালিক মেম্বার, আব্দুল কদ্দুস সুমন মেম্বার, মাহমুদুর রহমান যোসেফ, আবু হানিফা সায়মন, আনোয়ার হোসেন আলী, কামরুজ্জামান কামরুল, ইউনুছ খান, কামাল উদ্দিন, এনামুল হক তালুকদার, কামরুল হাসান কাজল, আবিদুর রহমান আঙ্গুর, রাফি আহমদ রিংকু, আমতর আলী, আঙ্গুর মিয়া, হাবিবুর রহমান, বাবুল মিয়া মেম্বার, শাহিন আহমদ তালুকদার, কামাল উদ্দিন, অতুল দেব, আব্দুল মতিন, জাকির হোসেন, রহমত মোল্লা, সেলিম আহমদ, খালেদ আহমদ, খলিলুর রহমান, শফিক মিয়া, আব্দুল করিম, রইছ আহমদ, রহিম আলী, ফরিদ মিয়া, তমাল দাস, গিয়াস উদ্দিন, আব্দুল কুদ্দুস শিপলু, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি সহিদুল ইসলাম, শ্রমিকলীগ নেতা আব্দুল কুদ্দুস, আজিজুর রহমানসহ ছাতক-দোয়ারাবাজার উপজেলা ও ছাতক পৌর আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, কৃষকলীগ, শ্রমিকলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় মোনাজাত করেন বাঘেরখলা পীর শাহ ফারুক আহমদ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ছাতক উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির যুগ্ম আহবায়ক সৈয়দ আহমদ ও আফজাল হোসেন। সবশেষে সন্ধ্যায় শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।