দিরাইয়ে মিথ্যা রটনার প্রতিবাদে চেয়ারম্যান প্রার্থীর প্রতিবাদ !

প্রকাশিত: ১৬ ডিসেম্বর ২০২১, ৫:৩২ অপরাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক::সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার ৬ নং করিমপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রদপ্রার্থী ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের
সন্তান লিটন চন্দ্র দাসকে জড়িয়ে মিথ্যা রটানোর অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ ডিসেম্বর) কালনীভিউ নামে একটি অনলাইন পেইজ’ এনিয়ে একটা পোস্ট করা হয়।করিমপুর ইউনিয়নের স্বত্রন্ত্র প্রার্থী তপু দাসের পেটে ছুঁড়া লাগানো একটা ছবি সংযুক্ত করে লেখা হয়, ‘দিরাই উপজেলার করিমপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর হামলায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী গুরুতর আহত হওয়ার অভিযোগ।
আশংকাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ।
বিস্তারিত আসছে….’উল্লেখ করে একটা পোস্ট করা হয়।

এ নিয়ে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় কিছু মানুষের সাথে কথা বললে, তারা বলেন,চেয়ারম্যান প্রার্থী লিটন চন্দ্র দাসকে জড়িয়ে যে রটনা হচ্ছে আদতে এরকম কিছুই হয় নি। যে লোকটাকে দিয়ে পোস্ট করা হয়েছে, সে একজন নেশাগ্রস্থ লোক, তার বাবার বাড়ি চিতলা গ্রামে চানপুর গ্রামে সে তার মামার বাড়িতে বসবাস করে । সে ভবঘুরে একটা মানুষ।আওয়ামী বিরোধী একটা চক্রের প্ররোচনাতেই সে মূলত নিবার্চনে আসে।শুরু থেকেই লিটন দাসের বিরুদ্ধে নানা রকম বিভ্রান্তকর রটনা করে আসছিল। সামনে নির্বাচন, নির্বাচনী মাঠে লিটন চন্দ্র দাসের অবস্থা খুবইভাল। আওয়ামীলীগের এই প্রার্থীকে হেনস্তা করার জন্যেই জামায়াত বিএনপি ও আওয়ামীলীগ বিরোধীচক্রের কিছু মানুষ স্থানীয় এক ফরমায়েশি কথিত সাংবাদিক দিয়ে এমন মিথ্যা রটনা ছড়িয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গেল বুধবার রাতে প্রতিদিনের মতো স্থানীয় একটি মন্দিরে রাতযাপন করছিল। পরবর্তীতে রাত তিনটার দিকে সে গ্রামের লোকজনকে জানায় কে বা কারা তাকে ছুরিকাঘাত করে পারিয়ে যায়। পরে গ্রামের লোকজন তাকে আহত অবস্থায় দিরাই মেডিক্যালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজে রেফার করেন।এবিষয়ে চানঁপুর গ্রামের জীবন সূত্রধর জানান, গতরাতে তপু দাস আহত হবার খবর শুনেছি। আহত তপু দাস একজন ভবঘুরে উল্লেখ করে জীবন আরও বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই বাড়িতে না ঘুমিয়ে পাশের একটি মন্দিরে রাত্রিযাপন করে থাকে।শুনেছি কয়েকবছর আগেও নাকি টাকার বিনিময়ে জগন্নাথপুরের এক লন্ডন প্রবাসীর হয়ে দীর্ঘদিন কারাবরণ করে আসছে।

এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন করিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী লিটন চন্দ্র দাস। এনিয়ে তিনি বলেন, এলাকায় আমার জনসমর্থন দেখে আমার নির্বাচনী মাঠ নষ্ট করার জন্য একটি মহল পরিকল্পিতভাবে ঘটনাটি ঘটিয়েছে। লিটন বলেন, দিরাইয়ের এক সাংবাদিক ’কালনী’ ভিউ নামক ফেসবুক পেইজ থেকে একদম মিথ্যা বানোয়াট পোস্ট করে, যাতে আমার এবং আমার সমর্থকরা বিব্রতবোধ করে।’কালনীভিউ২৪.কম’ নামে নামসর্বস্ব অনুমোদনহীন এই নিউজ পোর্টাল দিয়ে অতীতেও অনেকের মানহানি করা হয়েছে উল্লেখ করে লিটন চন্দ্র দাস বলেন, এলাকার বিভ্রান্তকর পরিস্থিতি সৃষ্টিকারী এই ভূয়া সাংবাদিকের বিরুদ্ধে আমি আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।