হাওরপাড়ের নারী জাগরনের‘বাতিঘর’বাংলাদেশ ফিমেল একাডেমি কর্মশালায় বক্তারা

প্রকাশিত: ৮ জানুয়ারি ২০২২, ৭:৫৯ অপরাহ্ণ

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: এতিম অসহায় পথ শিশুদের জীবনমান উন্নয়নে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই হাওরপাড়ের নারী জাগরনের বাতিঘর হিসেবে বাংলাদেশ ফিমেল একাডেমি কাজ করে যাচ্ছে, উল্লেখ করে বাংলাদেশ সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সচিব মো: আক্তার হোসেন বলেন, কারিগরী দক্ষতা ছাড়া মান সম্মত জীবন গড়া সম্ভব নয়,তাই লেখাপড়ার পাশাপাশি কারিগরী শিক্ষাকে গুরুত্ব দিতে হবে।

বাংলাদেশ ফিমেইল একাডেমী এতিম নারী শিশুদের সুন্দর জীবন গড়ার সুযোগ করে দিচ্ছে । কল্যানকর এমন সব ধরনের কাজে সহযোগীতার আশ্বাস দিয়ে তিনি বলেন, এ প্রতিষ্ঠানে শুধু পড়াশুনা করলে চলবে না, তাদেরকে কারিগরী জ্ঞান সম্বলিত শিক্ষা দিতে হবে। আমাদের দেশের কাজের সুযোগ রয়েছে, তাদেরকে প্রশিক্ষন দিয়ে কাজের উপযোগী করে তুলতে হবে ”।শনিবার(০৮ জানুয়ারী) বেলা ১১টায় স্যার সলিমুল্লাহ মুসলিম এতিম খানা ও বাংলাদেশ ফিমেইল একাডেমি(বিএফএ) এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত বেসরকারি এতিমখানার সমস্যা চিহ্নিত করন ও সমাধানে করনীয় শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য কালে তিনি এসব কথা বলেন।

দিরাই ফিমেইল একাডেমীর হলরোমে আয়োজিত কর্মশালায় সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো: জাহাঙ্গীর হোসেনের সভাপতিত্বে এবং সিনিয়র সাংবাদিক সামছুল ইসলাম সরদারের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, বিভাগীয় কমিশনার ড. মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন, অতিরিক্ত সচিব (অব:) আবদুল করিম,ডিআইজি(সিলেট অঞ্চল)মফিজ উদ্দিন আহমেদ পিপিএম,সমাজ সেবা অধিদপ্তরের পরিচালক কামরুল ইসলাম,পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান,উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মঞ্জুর আলম চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান মোহন চৌধুরী,উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছবি চৌধুরী,সাংবাদিক জিয়াউর রহমান লিটন, এমরান হোসেন প্রমুখ।

কর্মশালায় উপস্তিত ছিলেন জেলা ও উপজেলাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন শ্রেনী পেশার লোকজন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ফিমেইল একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক জামিল চৌধুরী। কর্মশালা শেষে সিনিয়র সচিব মো: আক্তার হোসেনের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে এতিম শিশুদের মধ্যে ৫০০ শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।