অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা: বিক্ষোভে ফাটছে এলাকাবাসীসহ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিত: ১ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ৭:৪৭ অপরাহ্ণ

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার বিবিয়ানা মডেল ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ নৃপেন্দ্র তালুকদার দাসের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র মুলুক মামলার প্রতিবাদে এবং নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে ছাত্র শিক্ষসহ ৫ উপজেলার অন্তত ২৭ গ্রামের কয়েক শতাধিক মানুষ। মঙ্গলবার বেলা ৩টার দিকে বোয়ালিয়া বাজার শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে শিক্ষক শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর যৌথ উদ্যেগে এ মানববন্ধন কর্মসূচি ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধন শেষে ধাইপুর গ্রামের প্রবীন মুরব্বি আব্দুল হেকিমের সভাপতিত্বে এবং শাহ নুর আলম সাবান মিয়ার পরিচালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাবেক ইউপি সদস্য ইসহাক মিয়া, আইয়ুব আলী, আবু তাহের চৌধুর,, সুপাল দাস, রুপ মিয়া, শিকদার মিয়া, সুখ লাল দাস, গৌরাঙ্গ দাস, আবদুল মন্নান, ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী, এয়াবুর মিয়া, প্রধান শিক্ষক সুকেতু রঞ্জন দাস, নুরু মিয়া, সত্তার মিয়া সত্যেন্দ্র দাস, যতিন্দ্র দাস, ইউপি সদস্য ইলিয়াছ মিয়া, সোনাচাদ দাস, ঝুনু মিয়া প্রমুখ। শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আশীষ দাস, রুনেল আহমেদ, সাইফুল ইসলাম, দিলোয়ারা বেগম, সুতলাল দাস, অমর চাঁদ দাস, কামরুল আহমেদ, মাসুমা বেগম প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, কিছু কুচক্রী মহলের ইন্ধনে স্থানীয় দুশ্চরিত্রা মহিলার মিথ্যা মামলায় ষড়যন্ত্র মুলুক ভাবে অধক্ষ্য নৃপন্দ্র বাবুকে ফাঁসানো হয়েছে। উনার নিঃশর্ত মুক্তির দাবী জানিয়ে বক্তারা আরও বলেন, যার জীবনের মেধা, শ্রম ও সম্পত্তি দান করে অজোপাড়া গায়ের এ কলেজটিকে সিলেট বিভাগের শীর্ষ স্থান লাভ করেছে, চিহ্নিত কুচক্রী মহল বিবিয়ানা মডেল ডিগ্রি কলেজটিকে ধ্বংস করতে নৃপেন্দ্র বাবুকে মিথ্যা মামলায় জড়ানো হয়েছে। এই কুচক্রী মহলের কলেজ ধ্বংসের পায়তারা রুখে দেওয়ার ঘোষনা দেন তারা।

তথাকথিত ওই নারী চক্রান্তের জালে এলাকার অনেককেই ফাঁসিয়ে সম্মান হানি করেছে। এ নারীর চক্রান্তে পড়ে এনজিও এক কর্মকর্তার চাকরিও হারিয়েছে।
প্রতিবাদ সমাবেশে দিরাই, শাল্লা, নবীগঞ্জ, জগন্নাথপুর ও বানিয়াচং এই পাঁচ উপজেলার বাসী, চৌকি বাউসী, ভাইট গাও, ধাই পুর, সোনাপুর, জগন্নাথপুর, আমরা খাই, হরিনাকান্দি, মেঘনার কান্দি, রৌয়াইল, সাউদেশ্রী, মার্কুলী, ধীতপুর, সোয়াতিয়র, হাতিয়া, সুরিয়ারপার, আকিলশাহ, কুলঞ্জ, তেতৈয়াসহ ২৭ গ্রামের অন্তত কয়েক শতাধিক মানুষ প্রতিবাদ সমাবেশে অংশ নেয়। সমাবেশ শেষে বোয়ালিয়া বাজারে অধ্যক্ষ কৃপেন্দ্র তালুকদারের মুক্তি চেয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে উপস্থিত জনতা। উল্লেখ্য স্থানীয়দের ভাষ্যমতে বিতর্কিত নারী রাজরানী চক্রবর্তীর দায়ের কৃত পনোগ্রাফি মামলায় বিগত ২৪ জানুয়ারি জাহিরা দিতে গেলে বিজ্ঞ আদালত অধ্যক্ষ নৃপেন্দ্র কুমার দাস ও সহোদর ছোট ভাই ১নং বড় ভাকৈর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রঙ্গলালা দাসকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।